,


সুবর্ণচরে ধর্ষণের প্রতিবাদে পথে নেমেছে মহিলা দল

উপচার ডেস্ক: ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান বলেছেন, একের পর এক নারী ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন ও শিশু নির্যাতনে নারী সমাজ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। কিন্তু সরকার জোর করে গণতন্ত্রকে দাবিয়ে রেখে উল্লাস করছে। আজ শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত মানববন্ধনে এসব কথা বলেন তিনি। নোয়াখালীর সুবর্ণচরে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। সেলিমা রহমান বলেন, অপরাধীদের কাছে আমাদের বিচার চাওয়ার কিছু নেই। কারণ, আমরা দেখতে পাচ্ছি যারা অপরাধ করে তারা অপরাধীদের বিচার করে না। যারা আজকে বিনা ভোটে জোড় করে নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের ভেতর অপরাধবোধ বলতে কিছু নাই। তারা সবাই অপরাধী।

পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সেলিমা বলেন, আপনাদের মা-বোন আছে, আপনাদের বিবেক আছে, মানবতাবোধ আছে। সেই মানবতাবোধ থেকে আপনারা দেখবেন একজন সন্ত্রাসীও যেন পালাতে না পারে। সুবর্ণচরে এই নৃশংস ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের আপনারা আইনের আওতায় আনবেন।

সেলিমা বলেন, আজকে আমরা এখানে শুধুমাত্র একজন মায়ের ধর্ষণের বিচারের দাবিতে এসেছি। তাও তারা আমাদের এখানে দাঁড়াতে না করেছে। এ কোন দেশ, যে দেশে মানুষের কোনো কথা বলার অধিকার নেই। এখানে মানুষের প্রতিবাদের অধিকার নেই। তাই সকলকে বলতে চাই, আপনারা ঐক্যবদ্ধ হোন। আমাদের মা বোনরা যেন শান্তিতে বেঁচে থাকতে পারে সেই সুযোগ করে দিন।

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস বলেন, আমরা এখানে শুধু প্রতিবাদ করার জন্য এসেছিলাম। কিন্তু এই সরকারের প্রশাসন আমাদের দাঁড়ানোর সুযোগ দিতে চাইনি। সুবর্ণচরে যে নৃশংস গণধর্ষণের ঘটনা ঘটলো তার প্রতিবাদের জন্য আমরা এখানে দাঁড়িয়েছিলাম। ধানের শীষে ভোট দিয়ে মহাপাপ করেছে বলে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

আফরোজা বলেন, আমরা শুনেছি, সেই ঘটনায় সাতজন গ্রেফতার হয়েছে আমরা চাই তাদের ফাঁসি দেয়া হোক। একটি ঘটনা ঘটলে সরকার আরেকটি ঘটনা ঘটিয়ে সেই ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। সেটা যেন এবার না হয়। এবার যদি ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক বিচার না হয়, তাহলে যারা ধর্ষণের শিকার হয়েছেন, তারা নিরাপদে থাকবে না এবং যারা ধর্ষক তারা মহা উৎসবে আরো ধর্ষণের লীলা খেলায় মেতে উঠবে। সরকারের কাছে আমরা আহ্বান করবো, সেই সুযোগ যেন তাদের আর না দেয়া হয়।

নির্বাচন নিয়ে আফরোজা বলেন, ৩০ ডিসেম্বর প্রহসনের নির্বাচন হলো। এই নির্বাচনের প্রত্যেক মহিলা প্রার্থীর ওপর হামলা হয়েছে। বিশেষ করে আমি আফরোজা আব্বাস, আমার ওপর ১০ বার হামলার চেষ্টা হয়েছে সেটা আপনারা দেখেছেন
মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শামসুন নাহার, শাহিদা রফিক প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০