,


রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আদালতে তলব

নিজস্ব প্রতিনিধি : মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহীর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহা. মোকবুল হোসেনকে তলব করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের সহকারি জজ আদালত (নাচোল)। আগামী ১৩ নভেম্বর তাকে স্বশরীরে আদালতে উপস্থিত হয়ে কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য নির্বাচন সংক্রান্ত কাগজপত্র দাখিল করতে বলা হয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, গত ৪ সেপ্টেম্বর চাঁঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল রাজবাড়ী কলেজের গভর্নিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই নির্বাচনে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দুলাল উদ্দিন খাঁন প্রিজাইডিং অফিসার হিসাবে নির্বাচন পরিচালনা করেন। নির্বাচনে ৪জন অভিভাবক সদস্য এবং ৩জন শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচিত হন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দুলাল উদ্দিন খান নির্বাচন সংক্রান্ত যাবতীয় কাগজপত্র অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানের নিকট দাখিল করেন। কিন্তু কমিটিতে দাতা সদস্য বাদ পড়ায় নির্বাচনের ফলাফল বেআইনি দাবি করে এবং নির্বাচিত কমিটি যাতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহী থেকে অনুমোদন নিতে না পারে, সেই লক্ষ্যে নাচোল বাজারপাড়া এলাকার শওকত আলীর ছেলে মশিউর রহমান বাদি হয়ে গত ২২ সেপ্টেম্বর নাচোল সহকারী জজ আদালতে চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলার আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত গত ৭ অক্টোবর কমিটির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

মামলা ও নিষেধাজ্ঞার কারণে নির্বাচিত কমিটি অনুমোদনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহী বরাবর আবেদন করেননি রাজবাড়ী কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান। কে বা কারা তাঁর স্বাক্ষর ও কাগজপত্র জাল করে গত ৩ অক্টোবর শিক্ষা বোর্ডে দাখিল করে এবং কমিটি অনুমোদনের সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।

ফলে গত ১৩ অক্টোবর রাজবাড়ী কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সহকারি জজ আদালতে (নাচোল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ) বাদি হয়ে কলেজের নির্বাচিত সভাপতি মেসবাউল হক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহা. মোকবুল হোসেন, কলেজ পরিদর্শক হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে জালিয়াতির একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর- ১১২/১৯।

আদালত গত ১৫ অক্টোবর রীট মূলে কাগজপত্র পর্যবেক্ষণের জন্য অ্যাডভোকেট কমিশনার হিসাবে নিয়োগ দেন অ্যাডভোকেট সাদিকুর রহমান সরকারকে। গত ২০ অক্টোবর সাদিকুর রহমান সরকার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহীর চেয়ারম্যানের সাথে সাক্ষাৎ করে রীট দরখাস্ত দেখিয়ে রীটে বর্ণিত কাগজপত্র দেখতে চান।

বোর্ড চেয়ারম্যান রীটের কাগজপত্র নিয়ে অ্যাডভোকেট কমিশনার সাদিকুর রহমান সরকারকে লাঞ্ছিত করে অফিস কক্ষ থেকে বের করে দেন বলে অভিযোগ করেন। বিষয়টি তিনি আদালতে উপস্থাপন করেন।

আদালত গত ৩ নভেম্বর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহা. মোকবুল হোসেন ও কলেজ পরিদর্শক হাবিবুর রহমানকে ১৩ নভেম্বর বুধবার সকালে আদালতে স্বশরীরে হাজির হয়ে রাজবাড়ী কলেজের গভর্নিং বডির অনুমোদন সংক্রান্ত গত ৩ অক্টোবরের অধ্যক্ষের আবেদনপত্রসহ গভর্নিং বডির সদস্যদের নামের তালিকা দাখিলের আদেশ দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজবাড়ী কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান জানান, গত ৬ অক্টোবর শিক্ষা বোর্ড থেকে অনুমোদিত গভর্নিং কমিটির কপি হাতে পেয়ে জানতে পারি কমিটিতে সভাপতি হিসাবে সদর ইউনিয়েনের সদস্য মেসবাউল হককে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। গভর্নিং কমিটির সভাপতি মেসবাউল হক মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহীর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহা. মোকবুল হোসেনের আপন ফুফাতো ভাই। শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের বাড়ি নাচোলের ফুরশেদপুর গ্রামে। বিষয়টি জালিয়াতি ও যোগসাজসের মাধ্যমে গভর্নিং কমিটির অনুমোদন দেয়ায় আমি আদালতে জালিয়াতির মামলা করি।

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১