,


মানবতা আজ কোথায়?

সাংবাদিক আতাহার হোসেন সুজন : একজন পরিচয়হীন মানসিক বিকারগ্রস্ত নারীর জন্য বাংলাদেশ সরকার অথবা সরকারী কোন সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের দায়-দায়িত্ব নেয়ার মত কোন দায়ইত্ব আছে কি না, সেটা আজ আমার কাছে একটা বড় প্রশ্ন হয়ে দারিয়েছে !একজন মহিলা অভিভাবক এর অভাবে বাংলাদেশের ঢাকায় অবস্থিত সরকারি হাসপাতাল “জাতীয় মানসিক হাসপাতাল” একজন পরিচয়হীন মানসিক বিকারগ্রস্ত মহিলা রোগীকে ভর্তি রাখেনি। তাহলে প্রশ্ন হলো সরকার আপনা আমার লক্ষ লক্ষ টাকা বেতন দিয়ে সরকারী হাসপাতালে সেবক সেবিকা নিয়োগ দিয়েছেন কেন? যে এলাকা থেকে তাহাকে পাওয়া গেছে সেই এলাকার থানার ওসি প্রয়জনে আর্থিক সাহায্য করতে পারেন, কিন্তু মহিলাটির দাইত্ব নিয়ে কোন সেবা মূলক প্রতিষ্ঠানের কাছে হস্তান্তর করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এক পর্যায়ে তিনি বলে ফেললেন, কেন আমরা গায়ে পরে এই সব উটকো ঝামেলায় জরাতে যাই। ওসি সাহেবের অধীনস্থ কর্মকর্তা আমাদের এই মহিলাটি কে নিয়ে থানা থেকে বাইরে যেতে বল্লেন।

আমি পাল্টা প্রশ্ন করে বল্লাম, মহিলাটিকে যেখানে পাওয়াগেছে সেখানেই যদি রেখে আসি, এবং এর পরে যদি এই মহিলার কোন দুর্ঘটনা ঘটে তখন তো আবার আমাদেরকে নিয়ে টানা-হেচরা শুরু করে দিবেন তাই নায় কি ? আমার কথা শুনে ঐ কর্মকর্তা শুধু এটুকুই বললেন, এই সব মানুষিক রোগির দায়-দায়িত্ব নেয়ার কাজ আমাদের না, এটা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব আপনারা সেখানেই যান। এর পর যোগাযোগ করা হলো মিরপুরে অবস্থিত “অপরাজেয় বাংলা” নামক সমাজ সেবা মূলক প্রতিষ্ঠানের সাথে, সেখান থেকে প্রতিনিধিরা এসেছিল, কিন্তু প্রাপ্ত বয়স্কা বলে দায়িত্ব নিতে অতপারগতা যানিয়ে দেয়। অতপর আমার বন্ধুরা মহিলাটি কে নিয়ে ঢাকা শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চলে যায় এবং সেখানে ৪ নং ওয়াডে ভর্তি করতে সক্ষম হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১