,


তানোরে সরকারী স্কুল দখলের পাঁয়তারা

তানোর প্রতিনিধি : রাজশাহীর তানোরের পাঁচন্দর ইউপির ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মতলববাজ একটি কুচক্রী মহল ডাঙ্গাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ধ্বংস ও দখলের চেস্টায় মরিয়া হয়ে বিভিন্ন কৌশলে স্কুল বন্ধের তৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সচেতন মহল ও গ্রামবাসীর মধ্যে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে এই বিষয়ে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য উঠে এসেছে সচেতন মহল ও গ্রামের সিংহভাগ মানুষের দাবী তারা স্কুল চাই, তবে গ্রামের হাতেগোনা কিছু সুবিধাবাদী মতলববাজ স্কুলের প্রয়োজন নাই দাবি করে স্কুল বন্ধ করতে নানা তৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। এমনকি চক্রটি স্কুলের শিক-কর্মচারী ও শিার্থীদের নানাভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শনের পাশপাশি নানা কৌশলে পাঠদান ব্যাহত করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তানোরের পাঁচন্দর ইউপির ডাঙ্গাপাড়া গ্রামে প্রায় এক হাজার পরিবারের বসবাস রয়েছে। ডাঙ্গাপাড়া মৌজায় সরকারী খাসখতিয়ান ভুক্ত ২৭৪ নম্বর দাগে এক একর ৪৩ শতক সম্পত্তি রয়েছে কবর স্থানের নামে। কিন্তু সম্পূর্ণ সম্পত্তি কবর স্থানের কাজে ব্যবহৃত না হওয়ায় গ্রামবাসীর ঐক্যবদ্ধ প্রচেস্টায় ৩৩ শতক সম্পত্তির উপর প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়, কবরস্থান ও স্কুল দুটিই গুরুত্বপূর্ণ এবং জনস্বার্থে ব্যবহৃত, এখানে ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হওয়ার কারো কোনো সুযোগ নাই। ফলে এক একর ৪৩ শতাংশ সম্পত্তির মধ্যে ৩৩ শতক স্কুলের কাজে ও বাঁকি সম্পত্তি কবর স্থানের কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বিগত ১৯৯৭ সালে ডাঙ্গাপাড়া গ্রামে ডাঙ্গাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হয় এবং ২০১৩ সালে জাতীয়করণ হয়। স্কুলে বর্তমানে ৪ জন শিক ও প্রায় দেড় শতাধিক শিার্থী রয়েছে এমনকি তিনতলা ফাউন্ডেশনে দ্বিতল ভবন নির্মাণের অনুমোদন হয়েছে। এদিকে একটি কুচক্র মহল ব্যক্তিগত ভাবে লাভবান হবার জন্য স্কুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে চলেছে, তারা অভিযোগে বলেছে কবরস্থানের সম্পত্তির ওপর স্কুল রয়েছে তাই তারা স্কুল চাই না কবরস্থান চাই। আসলে তাদের উদ্দেশ্যে কবরস্থান বা স্কুল নয় তাদের আসল উদ্দেশ্যে সমাজের দুটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করে অবৈধ অর্থ আহরণ করা। কারণ ডাঙ্গাপাড়া গ্রামে যেই পরিমাণ মানুষের বসবাস তাতে এক একর ৪৩ শতক সম্পত্তির মধ্যে স্কুলের ৩৩ শতক সম্পত্তি বাদেও বাঁকি সম্পত্তি ওই গ্রামের কবরস্থানের জন্য যথেস্ট আবার পারিবারিক কবরস্থান তো রয়েছেই। এব্যাপারে স্কুলের সভাপতি কবির উদ্দীন বলেন, গ্রামের কিছু টাউট শ্রেণীর মানুষ অবৈধ অর্থ না পেয়ে স্কুলের তিসাধন করতে চাই। এব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক কবির হোসেন বলেন, গ্রামের ধান্দাবাজ শ্রেণীর কিছু মানুষ স্কুল নিয়ে বাণিজ্য করতে চাই তাদের সঙ্গে গ্রামের সাধারণ মানুষের কোনো সম্পৃক্ততা নাই। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তানোর উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন, স্কুলের ৩৩ শতক সম্পত্তি বাদে বাকি সম্পত্তি ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের কবরস্থানের জন্য যথেস্ট সেটা কবরস্থানের জন্য তাদের ব্যবহার করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০