,


আড়ানী পৌর মেয়রের স্বাক্ষর জাল, তোপের মুখে আ.লীগ নেতা

বাঘা প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘায় আড়ানী পৌর মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে ওয়ারিশান সার্টিফিকেট তৈরির ঘটনায় তোপের মুখে পড়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা মতিউর রহমান মতি। তিনি পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। জমিজমা সংক্রান্ত বিবাদকে কেন্দ্র করে মতিউর পৌর মেয়রের স্বাক্ষর জাল করে ওয়ারিশান সার্টিফিকেট তৈরি করেন। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার এক শালিস বৈঠকে আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলীর তোপের মুখে পড়েন মতিউর।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আড়ানী পৌর এলাকার রুস্তমপুর গ্রামের ফারুক হোসেনের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে বিরোধ রয়েছে একই এলাকার দুই বোন এবং মতিউরের ফুপি হাজেরা বেগম ও হারেজানের। এ বিরোধকে কেন্দ্র করে ফুপির পক্ষে গেল বছর ১২ শতাংশ জমিসহ বাগানের আম দখল করেন মতিউর। চার দিন আগে ওই জমির আম পেড়েছে ফারুক পক্ষের লোকজন। সেই আম মতিউরের ফুপির অভিযোগের ভিত্তিতে থানায় জব্দ দেখানো হয়। পরে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে সেই আম বিক্রির ৩০ হাজার টাকা জমা রাখে (ওসি) তদন্ত। আর এ নিয়ে সোমবার সকালে ওসি প্রশাসনের রুমে বসানো হয় শালিস। সেখানে মৃত এক বোনের ওয়ারিশান দেখতে চাওয়া হলে যে সার্টিফিকেট দেখানো হয় তার স্বাক্ষর জাল বলে দাবি করেন আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলী। এ নিয়ে মতিউরের সঙ্গে বাক-বিত-ার ঘটনা ঘটে মেয়রের।

যার সত্যতা স্বীকার করেন শালিস বৈঠকে উপস্থিত বাঘা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, আড়ানী পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুজ্জামান শাহীদ কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক রাজ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম মন্টুসহ আরও অনেকে।

এ বিষয়ে মতিউরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ওয়ারিশান সার্টিফিকেট জাল-না সঠিক এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারব না। তবে মেয়র আমাকে জাল সনদ তৈরি সন্দেহের কথা শুনিয়েছেন।
বাঘা থানার ওসি মহসীন আলী বলেন, দুই পক্ষকে নিয়ে শালিসে বসেছিলাম। তবে এর সমাধান করা সম্ভব হয়নি। মেয়রের স্বাক্ষর জাল নিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে শালিস স্থগিত রেখে উভয়পক্ষের কাগজ উপজেলা সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) দেখানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে প্রতিবেদন এলে তবেই সমাধান করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০